কোষ কাকে বলে - কোষ কি দিয়ে গঠিত

প্রিয় পাঠক, আপনি নিশ্চয়ই কোষ সম্পর্কে জানতে চান, কোষ কাকে বলে, আবিষ্কারক কে কত সালে আবিষ্কার করা হয় প্রকারভেদ ইত্যাদি সম্পর্কে? তাহলে আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। আপনি এই পোস্টটি পড়লে কোষ সম্পর্কিত অনেক তথ্য আপনি জানতে পারবেন আশা করি, তাই আমাদের এই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।


এছাড়াও সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য আমাদের পোস্টের মধ্যে আপনি পেয়ে যাবেন। তাই আর কথা না বাড়িয়ে চলুন মূল পোস্ট শুরু করা যাক

ভূমিকা

আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনাকে জানানোর চেষ্টা করব, কোষ কাকে বলে, কোষ কে আবিষ্কার করেন এবং কত সালে আবিষ্কার করেন, কোষের প্রকারভেদ সম্পর্কে, কোষ কি দিয়ে গঠিত, কোষের কাজ কী, প্রাণী কোষের বৈশিষ্ট, উদ্ভিদ কোষের বৈশিষ্ট্য ইত্যাদি কোষ সম্পর্কিত অনেকগুলো বিষয় আমরা এই পোস্টের মাধ্যমে আপনাকে জানানোর চেষ্টা করব তাই কোষ সম্পর্কে জানতে আমাদের সাথে থাকুন।

কোষ কাকে বলে

কোষ কাকে বলে বা কোষ কি এর সম্পর্কে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন বিজ্ঞানী কোষের বিভিন্ন সংজ্ঞা প্রদান করেছেন, প্রধানত চারটি মতবাদ প্রচলিত আছে নিচে দেওয়া হল

১. Jean Brachet (1961) এর মতে- "কোষ হলো জীবের গঠনগত মৌলিক একক"

২. Loewy and Siekevitz (1963) এর মতে- "কোষ হলো জৈবিক ক্রিয়াকলাপের একক যা একটি অর্ধভেদ্য ঝিল্লি দ্বারা পরিবেষ্টিত থাকে এবং যা অন্য কোন সজীব মাধ্যম ছাড়াই আত্ম-প্রজননে সক্ষম।"

৩. C.P Hickman (1970) এর মতে- "কোষ হলো জৈবিক গঠন ও কার্যের একক" এবং এটিই ন্যূনতম জৈবিক একক যা নিজের নিয়ন্ত্রণ ও প্রজননের সক্ষম। "

৪. De Roberties (1979) এর মতে- "কোষ হলো জীবের মৌলিক গঠনগত ও কার্যগত একক। "
তবে C.P Hickman এর মতবাদ টি সবথেকে বেশি প্রযোজ্য বা গণ্য হিসেবে ধরা হয়

কোষ কে আবিষ্কার করেন? এবং কোষ কত সালে আবিষ্কার করেন?

Cell শব্দের অর্থ হলো কোষ। এখানে আপনাকে মনে রাখতে হবে যে কোষের আবিষ্কার এবং কোষ শব্দের প্রবর্তক একই চলুন তবে আবিষ্কার ও কোষ শব্দের প্রবর্তক কে জেনে নেওয়া যাক
তবে এখানে নিচের দেওয়া বিষয় গুলো মনে রাখা ভালো,

কোষ শব্দের প্রবর্তক এবং আবিষ্কার হলো রবার্ট হুক। রবার্ট হুক ১৬৬৫ সালে কোষ শব্দের প্রবর্তন এবং আবিষ্কার করেন।
  • সবচেয়ে ছোট কোষ এর নাম- মাইক্রোপ্লাজমা নামক PPLO
  • সবচেয়ে বড় কোষ এর নাম- উট পাখির ডিম
  • সবচেয়ে দীর্ঘতম কোষ এর নাম-নিউরন কোষ

কোষের প্রকারভেদ

কোষের প্রকারভেদ বিভিন্ন জিনিসেরে ভিত্তিতে ভিন্ন ভিন্ন হয়। নিচে সবগুলো প্রকারভেদ সম্পর্কে আলোচনা করা হলো

নিউক্লিয়াসের গঠনের ওপরে ভিত্তি করে কোষ ২ ধরনের হয়ে থাকে
১. প্রোক্যারিওটিক বা আদিকোষী (সুগঠিত নিউক্লিয়াস থাকে না)
২. ইউক্যারিওটিক বা প্রকৃতকোষী (সুগঠিত নিউক্লিয়াস থাকে)

শরীরবৃত্তীয় কাজের উপর ভিত্তি করে ২ ধরনের হয়ে থাকে
১. দেহ কোষ (2n)
২ . জনন কোষ (n)

অবস্থানের অপর ভিত্তি করে ২ ধরনের হয়ে থাকে
১. উদ্ভিদ কোষ (প্লাস্টিড বিদ্যমান)
২. প্রাণী কোষ (প্লাস্টিড অনুপস্থিত)

কোষ কি দিয়ে গঠিত

কোষ কি দিয়ে গঠিত এই প্রশ্নে কোষের গঠনও চলে আসে। কারন কোষ অনেক কিছু থাকে তবে আমারা এখানে প্রধানত যেগুলো জানা দরকার সেগুলো নিয়ে কথা বলবো। তবে আরও একটি বিষয় জেনে রাখা ভালো যে উদ্ভিদ কোষে কিছু জিনিস থাকে আবার সেটা প্রাণী কোষে থাকে না, আবার প্রাণী কোষে কিছু জিনিস পাওয়া গেলেও উদ্ভিদ কোষে পাওয়া যাইনা।

উদ্ভিদ কোষের ক্ষেত্রে
১. কোষ প্রাচীর
২. সাইটোপ্লাজম
৩. রাইবোজোম
ইত্যাদি থাকলেও মাইক্রোভিলাই সেন্ট্রোসোম আর লাইসোজোম থাকে না।

প্রাণী কোষের ক্ষেত্রে
১. প্রাণী কোষের কোষ প্রাচীর থাকে না, প্লাস্টিড থাকে না
২. সাইটোপ্লাজম থাকে
৩. রাইবোজোম থাকে

লেখকের মন্তব্য

প্রিয় পাঠক, আমাদের পোস্টটি আশা করি আপনার ভালো লেগেছে আপনার কিছুটা হলে উপকারে এসেছে আমরা এই পোস্টটির সকল তথ্য শ্রদ্ধেয় ড. মুহাম্মদ আবদুল হাসান স্যার সহ বিভিন্ন এডমিশন প্রস্তুতির বই সহ, বিভিন্ন বই গবেষণা করে আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।

আমাদের পোস্টটি যদি আপনারা কোথাও ভুল পেয়ে থাকেন তবে আমাদের এই ওয়েবসাইটে কমেন্ট সেকশনে কমেন্ট করে জানাবেন অথবা আমাকে হোয়াটসঅ্যাপে জানাবেন। আমাদের পোস্টে যদি ভালো লেগে থাকে আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আর এমন পোস্টের উপডেট পেতে আমাদের ওয়েবসাইট সাথে থাকবেন ভালো থাকবেন আসসালামুয়ালাইকুম।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url